মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

প্রশিক্ষণের তালিকা

কারারক্ষী প্রশিক্ষণঃ 

ক। রিফ্রেসার ট্রেনিংঃ- কারা অধিদপ্তরের প্রশিক্ষণ পরিকল্পনা অনুযায়ী প্রধান কারারক্ষী ও কারারক্ষীদেরকে প্রতি বছর ২ সপ্তাহ করে ২ টি রিফ্রেসার ট্রেনিং করানো হচ্ছে। এ বছর ১জন প্রধান কারারক্ষী, ১জন সহকারী প্রধান কারারক্ষী, ৯ জন কারারক্ষী ও ২ জন মহিলা কারারক্ষীর সমন্বয়ে রিফ্রেসার কোর্স সম্পন্ন করা হয়েছে। এছাড়া প্রত্যেক কারারক্ষী০৬ মাস ব্যাপী মৌলিক প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে থাকেন। 

খ। প্যাকেজ ট্রেনিংঃ- সরকারী ছটর দিন ব্যতিত ৩০ মিনিট প্যাকেজ ট্রেনিং (পিটি ,ড্রিল ও অস্ত্র প্রশিক্ষণ) করানো হচ্ছে।

গ। ফায়ারিংঃ- মৌলভীবাজার জেলা কারাগারে কারারক্ষীদের বাৎসরিক ৪ কোয়াটারে ফায়ারিং অনুশীলন করানো হচ্ছে। ২০১৮ খ্রিঃ সনে ১ম কোয়ার্টারে ০১ জন প্রধান কারাক্ষী, ০৪ জন মহিলা কারারক্ষী ও ১৬ জন কারারক্ষী ফায়ারিং অনুশীলনে অংশ গ্রহণ সম্পন্ন করেছে।  

ঘ। এলার্ম স্কীমঃ- বর্তমানে মৌলভীবাজার জেলা কারাগারে প্রতি মাসে ১ বার এলার্ম প্র্যাকটিস অনুশীলন করা হচ্ছে এলার্ম প্র্যাকটিস অনুশীলনের আগে ও পরে ব্রিফিং করা হয়।

ঙ) দরবারঃ- মৌলভীবাজার জেলা কারাগারে কর্মরত সকল কারা কর্মকর্তা ও সর্মচারীদের সমন্বয়ে প্রতি মাসে ০১ বার দরবার এবং বন্দীদেরকে নিয়ে মাসে ১বার দরবার অনুষ্ঠিত হয়।

সরকারী কর্মচারীদের দক্ষতা বৃদ্ধি ও সেবা প্রদানের লক্ষ জনপ্রশাসন প্রশিক্ষণ নীতিমালা (পিএটিপি) অনুযায়ী প্রণীত প্রশিক্ষণ পরিকল্পনা প্রনয়ণ ও মে/২০১৮ খ্রিঃ মাসের বাসত্মবায়ন অগ্রগতি প্রতিবেদনঃ-

অধিদপ্তর/

সংস্থার নাম

কর্মকর্তা/

কর্মচারীর শ্রেণী

কর্মকর্তা/

কর্মচারীর সংখ্যা

গত মাস মে/১৮ পর্যমত্ম প্রদত্ত প্রশিক্ষণ

(ঘন্টা)

বর্তমান মাসে প্রদত্ত প্রশিক্ষণ (ঘন্টা)

ক্রমপুঞ্জিত প্রদত্ত প্রশিক্ষণ (ঘন্টা)

কর্মকর্তা/

কর্মচারী প্রতি প্রদত্ত প্রশিক্ষণ

 (ঘন্টা) 

বিবেচ্য মাসে প্রদত্ত প্রশিক্ষণের বিষয় সমূহ

মৌলভীবাজার জেলা কারাগার।

১ম শ্রেণী

(২-৯ গ্রেড)

০২ জন

৫০ ঘন্টা

০৫ ঘন্টা

--

৫৫ ঘন্টা

ছুটি বিধি, টেলিফোন রিসিভ সংক্রামত্ম, নৈতিকতা ও সেবা পরায়নতা, নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তার সাথে আচরণ বিধি, গ্যাস, বিদ্যুৎ ও পানির অপচয় রোধ এবং শুভেচ্ছা বিনিময়, অনুরোধ জানানো। 

২য় শ্রেণী

 (১০-১১ গ্রেড)

০২ জন

৫০ ঘন্টা

০৫ ঘন্টা

--

৫৫ ঘন্টা

৩য় শ্রেণী

(১২-১৯গ্রেড)

৬১ জন

৫০ ঘন্টা

০৫ ঘন্টা

--

৫৫ ঘন্টা

৪র্থ শ্রেণী (২০ গ্রেড)

--

--

--

--

--

--

 

 

১১। প্রশিক্ষ সংক্রামত্ম পরামর্শঃ

            কারাগারকে সংশোধনাগার করার লক্ষ্য বিভিন্ন দেশের প্রশিক্ষণ কার্যক্রমের আদলে যুগোপযোগী প্রশিক্ষণ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হলে কারাগারে মানবিক দিক বিবেচনায় রেখে বন্দীদের নিরাপদ আটক নিশ্চিত করা, স্বাস্থ্য সেবা প্রদানসহ বন্দী পূনর্বাসনে অগ্রনী ভূমিকা পালন করা সম্ভব হবে।

০৯। প্রশিক্ষণের তালিকাঃ

) বন্দী প্রশিক্ষণঃ

মৌলভীবাজার জেলা কারাগারে বন্দীদের আরবী শিক্ষা ও বয়ষ্ক শিক্ষা কোর্স চালু আছে। ইহা ছাড়া বন্দী পুনর্বাসনের লক্ষ্যে বর্তমানে মৌলভীবাজার জেলা কারাগারে আরবী ভাষা শিক্ষা প্রশিক্ষণ, ইলেকট্রিক কাজ প্রশিক্ষণ, ইলেকট্রিক ও ইলেকট্রনিক্স যন্ত্রপাতি প্রশিক্ষণ, আধুনিক কৃষি ও নার্সারী, কুয়েল পাখি পালন প্রশিক্ষণ, দর্জি প্রশিক্ষণ, হঁস-মুরগী, টারকি মুরগী ও গবাদী পশু পালন প্রশিক্ষণ, টাইল্স ফিটিংস প্রশিক্ষণ, রেফ্রিজারেশন ও এয়ারকন্ডিশন প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে যা নিমেণ প্রদত্ত হলোঃ

(ক) কারাগারে আটক বন্দীদের শিক্ষাগত যোগ্যতা নিরূপণ করতঃ তাদের আগ্রহ অনুসারে বিভিন্ন ট্রেডে নিয়োজিত করে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয় ;

(খ) কারাগারে আটক সাজাপ্রাপ্ত বন্দীদেরকে বিভিন্ন ট্রেডে নিয়োজিত করে আধুনিক ও যুগোপযোগী প্রশিক্ষণ প্রদান করতঃ দক্ষ ও প্রশিক্ষিত করে গড়ে তোলা হয়। যাতে করে বন্দী সাজা ভোগের পর মুক্ত জীবনে ফিরে গিয়ে নানা রকম বিভিন্ন পেশায় নিজেকে নিয়োজিত করতে পারে ;

(গ) বন্দীদের চরিত্র সংশোধনের জন্য নানাবিধ প্রেষণামূলক প্রশিক্ষণ ক্লাস চালু রয়েছে যেমন-টেলিভিশন, ফ্রিজ, এসি, রেডিও, ফ্যান, চার্জার লাইট মেরামত, গবাদি পশু পালন, কাগজের প্যাকেট তৈরী, বেকারী, গার্মেন্টস, মৎস্য চাষ ইত্যাদি ;

(ঘ) কারাগারে বিভিন্ন প্রকার বৃত্তিমূলক ও কারিগরি প্রশিক্ষণ যেমন- মোড়া, তাঁত শিল্প, কামার, কার্পেট, থালা বাটি তৈরী, পাপোস, জুতা/স্যান্ডেল, কাঠের আসবাবপত্র তৈরী ইত্যাদি কাজ চালু আছে।


 

 

বন্দীদের কল্যাণমূলক কার্যক্রম 

(ক) কারাগারে আটক নিরক্ষর বন্দীদেরকে অক্ষরজ্ঞান দানের জন্য গণশিক্ষা কার্যক্রম চালু রয়েছে এবং প্রত্যেক নিরক্ষর বন্দীকে বাধ্যতামূলকভাবে এই শিক্ষা কার্যক্রমের আওতায় আনা হয়েছে। যাতে করে কারাগার হতে মুক্তির পর স্বাভাবিক জীবনে ফিরে গিয়ে তারা তাদের দায়-দায়িত্ব, অধিকার ও কর্তব্য সম্বন্ধে সজাগ হয়ে সুস্থ সমাজ গড়তে সহায়ক ভূমিকা রাখতে পারে ;

(খ) মরণ ব্যাধি এইডস এর ভয়াবহতা সম্পর্কে বন্দীদেরকে সজাগ করা হয় এবং এই মরণ ব্যাধি রোধকল্পে বন্দীদের নানা রকম পন্থা সম্পর্কে সচেতন করা হয় ;

(গ) কারাগারে আটক বন্দীদের নিজ নিজ ধর্ম প্রতিপালনের স্বার্থে ধর্মীয় শিক্ষক নিয়োগসহ পর্যাপ্ত সুযোগ-সুবিধার ব্যবস্থা রয়েছে ;

(ঘ) প্রতিনিয়ত বন্দীদের শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য প্রয়োজনীয় পরামর্শ ও নির্দেশনা প্রদান করা হয়ে থাকে;

(ঙ) বন্দীদের দরবার ব্যবস্থা নিশ্চিত এবং তাদের সমস্যাগুলি মনোযোগ সহকারে শ্রবণ করা হয় এবং সমাধানের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয় ;

(চ) নির্ধারিত তারিখে হাজিরার নিমিত্তে বন্দীদের কোর্টে প্রেরণ নিশ্চিত করা হয় ;

(ছ) বন্দীদের চিত্তবিনোদনের জন্য কারাভ্যন্তরে টিভি, রেডিও, ক্যারাম বোর্ড, ভলিবল, ব্যাডমিন্টন ও লুডু ইত্যাদির ব্যবস্থা করা হয়েছে ;

(জ) সাজাপ্রাপ্ত বন্দীদের দেখা-সাক্ষাতের সুবিধার্থে আবেদনের প্রেক্ষিতে নিজ জেলায়/নিকটস্থ কারাগারে বদলী নিশ্চিত করা হয় ;

(ঝ) কারাগারে ক্যান্টিন ব্যবস্থা চালু রাখা হয়েছে যেখানে সাশ্রয়ী মূল্যে প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী ও দৈনন্দিন ব্যবহার্য্য জিনিসপত্র মজুত রাখা হচ্ছে। বন্দীরা চাহিদানুযায়ী ক্যান্টিন হতে উক্ত মালামাল ক্রয় করতে সক্ষম হচ্ছে।


১০। প্রশিÿণে বিসত্মারিতঃ

 

ক্রমিক নং

প্রক্ষিনের নাম

মোট

 
 
  1.  
  1.  
  1.  
 

ইলেকট্রি্ক প্রশিক্ষণ (টিভি, ফ্যান ও ওয়ারিং)

৬০ জন।

 

পাইপ ফিটার প্রশিক্ষণ

৪৮ জন।

 

সেলাই প্রশিক্ষণ

৪৮ জন।

 

নর সুন্দর প্রশিক্ষণ

৬০ জন।

 

রান্না প্রশিক্ষণ

১২০ জন।

 

হঁস-মুরগী, টারকী মুরগী, কয়েল পালন প্রশিক্ষণ ও গবাদী পশু পালন প্রশিক্ষণ

১২০ জন। 

 

টাইল্স ফিটিংস প্রশিক্ষণ

৪০ জন।

 

রেফ্রিজারেশন ও এয়ারকন্ডিশন প্রশিক্ষণ

৩৫ জন।

 

আধুনিক কৃষি ও নার্সারী প্রশিক্ষণ

৩০ জন।

 
 

 

বি:দ্র:- উক্ত প্রশিক্ষণের ফলে কারাগারের ০৫ টি টিভি এবং ২০ টি ফ্যান কারাভ্যমত্মরে মেরামত করে সচল করা হয়েছে।

 

 

 

 

 

খ) শিক্ষা কার্যক্রমঃ-

দেশকে নিরক্ষরমুক্ত করার আন্দোলনের সাথে একাত্ততা প্রকাশ করে মৌলভীবাজার জেলা কারাগারে আগত বন্দীদেরকে স্বাক্ষরতা/ অক্ষরজ্ঞান এবং অরবী ভাষা শিক্ষা প্রদান করা হচ্ছে।

 

ক্রমিক নং

প্রশিক্ষনের নাম

প্রশিক্ষনার্থী

মোট

হাজতী

কয়েদী

  1.  
  1.  
  1.  
  1.  
  1.  
  1.  

নিরক্ষর হতে স্বাক্ষরতা প্রদান

১৮০ জন ।

৪৫ জন।

২২৫ জন।

  1.  

অক্ষর জ্ঞান প্রদান

৯০ জন।

১৫ জন।

১০৫ জন।

  1.  

আরবী অক্ষর জ্ঞান প্রদান

১৫৬ জন।

২৪ জন।

২৮০ জন।

  1.  

নামাজ শিক্ষা

১২০ জন।

২০ জন।

১৪০ জন।

 

 

 

গ) সাংষ্কৃতিক কর্মকান্ডঃ-

বন্দীদের মাঝে একটি সাংস্কৃতিক দল গঠন করা হয়েছে। তারা কারাভ্যমত্মরে বন্দীদের বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করে। 

বন্দীদেরকে নিয়ে গত ২৬ শে মার্চ ও ১লা বৈশাখ উপলক্ষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন জেল সুপার, জনাব মো: আনোয়ারম্নজ্জামান।

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :

Facebook Twitter